চাঁদপুর। সোমবার ২৮ মে ২০১৮। ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫। ১১ রমজান ১৪৩৯
ckdf
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরসহ দেশের বেশ কিছু জেলায় আজ ঈদ পালিত হচ্ছে
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৮-সূরা ছোয়াদ

৮৮ আয়াত, ৫ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৬। তারা বলে, হে আমাদের পরওয়ারদেগার, আমাদের প্রাপ্য অংশ হিসাব দিবসের আগেই দিয়ে দাও।

১৭। তারা যা বলে তাতে আপনি সবর করুন এবং আমার শক্তিশালী বান্দা দাউদকে স্মরণ করুন। সে ছিল আমার প্রতি প্রত্যাবর্তনশীল।

১৮। আমি পর্বতমালাকে তার অনুগামী করে দিয়েছিলাম, তারা সকাল-সন্ধ্যায় তার সাথে পবিত্রতা ঘোষণা করত;   

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


ঈশ্বরের পরবর্তী স্থানই হল পিতামাতার   

 -উইলিয়াম পেন।


নারী পুরুষের যমজ অর্ধাঙ্গিনী 


ফটো গ্যালারি
শাহরাস্তিতে প্রকাশ্য দিবালোকে জোরপূর্বক সম্পত্তি দখলের অভিযোগ
মোঃ মঈনুল ইসলাম কাজল
২৮ মে, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শাহরাস্তিতে প্রকাশ্য দিবালোকে জোরপূর্বক সম্পত্তি দখলের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার সকালে পৌর শহরের ৪নং ওয়ার্ডের নাওড়া রেলগেইট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।



ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, নাওড়া গ্রামের মৃত আবদুস্ ছামাদ পাঠানের পুত্র আহাম্মদ উল্যাহ পাঠান সিএস ২৩নং খতিয়ানে ওয়ারিশ সূত্রে মালিক দখলকার। তার মৃত্যুর পর ওই সম্পত্তি তার ৭ পুত্র ভোগদখল করে আসছিলো। ঘটনার দিন সকাল ৮টায় একই বাড়ির মৃত আবদুস ছালাম পাঠানের পুত্র ছিদ্দিকুর রহমান পাঠান ওই খতিয়ানভুক্ত সম্পত্তি অন্যত্র বিক্রি করে দলিলদাতাকে জোরপূর্বক দখল দেন। ওই সময় দখলদাতাদের সাথে আহাম্মদ উল্যাহর পুত্র আতিক উল্যাহ পাঠান গংয়ের বাক বিত-া হয়।



আতিক উল্যাহ পাঠান জানান, এ সম্পত্তি দীর্ঘদিন ধরে আমাদের দখলে রয়েছে। প্রতিপক্ষ ছিদ্দিকুর রহমান পাঠান অত্যন্ত দুষ্ট প্রকৃতির লোক। যতবারই সম্পত্তি নিয়ে বসা হয়েছে আমরা শান্তির স্বার্থে মেনে নিয়েছি, কিন্তু তিনি কোনো সঠিক প্রমাণাদি উপস্থাপন করতে পারেন নি। উল্লেখিত সম্পত্তি নিয়ে আমাদের সাথে ছিদ্দিকুর রহমান পাঠানদের আদালতে মামলা চলমান। আদালতের মামলা নিষ্পত্তি বা কোনো প্রকার নির্দেশনা ছাড়াই বর্তমানে আমাদের দখলীয় সম্পত্তি তার স্ত্রী মেহেরুন্নাহারের নামে কবালা দেখিয়ে গোপনে অন্যত্র বিক্রি করে দেন, যা সম্পূর্ণ অনৈতিক।



এ বিষয়ে সম্পত্তির দখলপ্রাপ্ত শামছুল আলম জানান, আমরা সম্পূর্ণ বৈধভাবে ছিদ্দিকুর রহমান পাঠানের সকল কাগজপত্র দেখে ওই সম্পত্তি রেজিস্ট্রি নিয়েছি। আমাদের রেজিস্ট্রিকৃত সম্পত্তি ছিদ্দিকুর রহমান পাঠানের স্ত্রীর নামে কবালা রয়েছে। তিনি ওই সম্পত্তি আমাদের বুঝিয়ে দেন। জোরপূর্বক দখলের কোনো ঘটনা ঘটেনি। ছিদ্দিকুর রহমান পাঠান ও আতিক উল্যাহ পাঠানদের ব্যক্তিগত রেষারেষি আমার উপর চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৪৩০৪০
পুরোন সংখ্যা