চাঁদপুর। বুধবার ১৫ নভেম্বর ২০১৭। ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪। ২৫ সফর ১৪৩৯

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩২- সূরা সেজদাহ

৩০ আয়াত, ৪ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১। আলিফ-লাম-মীম

২। এই কিতাবের অবতরণ বিশ্ব পালনকর্তার নিকট থেকে, এতে কোনো সন্দেহ নাই।

৩। তারা কি বলে,  এটা আপনি মিথ্যা রচনা করেছেন? বরং এটা আপনার পালনকর্তার তরফ থেকে সত্য, যাতে আপনি এমন এক সম্প্রদায়কে সতর্ক করেন, যাদের কাছে আপনার পূর্বে কোনো সতর্ককারী আসেনি। আশা করা যায় এরা সুপথপ্রাপ্ত হবে।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


সফলতা কখনো অন্ধ হয় না।


-টমাস হাডি।


মানবতাই মানুষের শ্রেষ্ঠতম গুণ।

 


সনাক ও টিআইবি'র আয়োজনে উত্তর শ্রীরামদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ
প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে অভিভাবক হিসেবে মায়েদের ওপর প্রত্যাশা অনেক বেশি
জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ খোরশেদ আলম এসএমসি-শিক্ষক-অভিভাবক একটি অপরটির সাথে ওতপ্রাতভাবে জড়িত : উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাজমা বেগম
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


'আদর্শ মায়ের অনুপ্রেরণায় আগামী প্রজন্ম গড়ে তুলবে দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ' এই সস্নোগানকে ধারণ করে উত্তর শ্রীরামদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে এবং সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ও টিআইবি'র সার্বিক সহযোগিতায় গতকাল উত্তর শ্রীরামদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ খোরশেদ আলম ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাজমা বেগম ও সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ দেলোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সনাক সভাপতি কাজী শাহাদাত। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সনাক সদস্য ও শিক্ষা বিষয়ক উপ-কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর মনোহর আলী।



প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ খোরশেদ আলম বলেন, প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে অভিভাবক হিসেবে মায়েদের ওপর প্রত্যাশা অনেক বেশি। তিনি বলেন, শিক্ষক-অভিভাবক-শিক্ষার্থী এই তিনের সমন্বয় থাকলে প্রাথমিক শিক্ষার মান আরও উন্নত হবে। শিক্ষার্থীরা যেনো নিয়মিত ও সময়মতো স্কুলে আসে সে বিষয়ে অভিভাবকদের দৃষ্টি রাখতে হবে। এই বিদ্যালয়ে কোনো অসচেতন অভিভাবক নেই যা আজকের উপস্থিতিই প্রমাণ করে। লেখাপড়ার পাশাপাশি সন্তানদের স্বাস্থ্য ও খাবারের প্রতিও খেয়াল রাখতে হবে। সন্তানদের পরিচর্যায় মায়েদের দায়িত্ব খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অভিভাবক সমাবেশে বাবাদের উপস্থিতির হার মায়েদের তুলনায় অনেক কম। আশা করছি, আগামীতে বাবাদের উপস্থিতি আরও বৃদ্ধি পাবে। তিনি বলেন, সন্তানদেরকে শুধুমাত্র বিদ্যালয়ে পাঠালেই হবে না। ওদের সকল দিকে বাবা-মাকে তদারকি করতে হবে। স্কুলের যে সকল সমস্যা রয়েছে আমরা প্রত্যাশা করছি পর্যায়ক্রমে তা সমাধান করা হবে। এ রকম একটি অভিভাবক সমাবেশ আয়োজনে সহযোগিতা করার জন্যে তিনি সনাক ও টিআইবিকে ধন্যবাদ জানান।



বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাজমা বেগম বলেন, এসএমসি-শিক্ষক-অভিভাবক একটি অপরটির সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি করতে হলে এই তিনটির সমন্বয় খুবই জরুরি। একজন সচেতন অভিভাবক হিসেবে আপনার দায়িত্ব হলো স্কুলে এসে সন্তানদের খোঁজখবর নেয়া। তিনি আরও বলেন, আপনাদের সহযোগিতার মাধ্যমেই প্রাথমিক শিক্ষার মান উত্তরোত্তর বৃদ্ধি করা সম্ভব। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীরটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তবে এটির নির্মাণকাজ ক'দিনের মধ্যেই শুরু হবে। বিগত সভায় আরও যে সকল সমস্যার কথা আপনারা বলেছেন পর্যায়ক্রমে তা সমাধান করা হবে। সন্তানদেরকে সুশিক্ষা প্রদানের পাশাপাশি তাদেরকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে মা-বাবা উভয়কেই সমানভাবে ভূমিকা পালন করতে হবে।



অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে অভিভাবক সমাবেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই বিদ্যালয়ের মায়েরা আগের তুলনায় অনেক বেশি সচেতন। গত সভায় যে সমস্যাগুলো উত্থাপিত হয়েছে ইতোমধ্যে পর্যায়ক্রমে তা সমাধানের কাজ শুরু হয়েছে। এই বিদ্যালয়ে শিক্ষককের একটি পদ বাড়ানো হয়েছে আবার সেটা দুটিও হতে পারে। শিক্ষার মান এবং অবকাঠামোগত দিক দিয়ে এই স্কুলটি অন্যান্য স্কুলের তুলনায় এগিয়ে আছে। এক্ষেত্রে সনাক ও টিআইবি'র ভূমিকা রয়েছে। তিনি আজকের এই অভিভাবক সমাবেশে উপস্থিত হওয়ার জন্যে সকলকে ধন্যবাদ জানান।



সভাপতির বক্তব্যে সনাক চাঁদপুরের সভাপতি কাজী শাহাদাত বলেন, এই বিদ্যালয়ের সমস্যাগুলোর সমাধান প্রক্রিয়াধীন আছে। আমরা আশা করছি, অচিরেই তা সমাধান করা হবে। এক্ষত্রে আপনাদের সহযোগিতা কাম্য। সন্তানরা যেন ভালোভাবে লেখাপড়া করতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখার জন্যে অভিভাবকদের প্রতি তিনি আহ্বান জানান। তিনি বাবা ও মা দু'জনকেই মাঝে মাঝে স্কুলে এসে সন্তানের লেখাপড়ার খোঁজখবর নেয়ার অনুরোধ করেন। তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা সকলে এই স্কুলের লেখাপড়ার মান আরও বৃদ্ধি করার জন্যে শিক্ষকদের সহযোগিতা করবেন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্যে তিনি সকল অভিভাবক, শিক্ষা কর্তৃপক্ষ, স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও এলাকাবাসীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।



বিদ্যালয়ের শিক্ষার মানোন্নয়নে অভিভাবকদের মতামত, জিজ্ঞাসা ও পরামর্শ বিষয়ে উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। পর্বটি পরিচালনা করেন সনাক সভাপতি কাজী শাহাদাত। এ সময় মতামত ব্যক্ত করেন খালেদা খানম, মমতাজ বেগম, রত্না বেগম, হাজেরা বেগম, মিশরী বেগম ও সুমি বেগম। তারা মতামত ব্যক্ত করে বলেন, এই স্কুলের লেখাপড়ার মান আগের তুলনায় ভালো। শিক্ষকরা পাঠদানে অনেক মনোযোগী। তবে কিছু সমস্যা রয়েছে যেমন : শিক্ষকগণ কর্তৃক শিক্ষার্থীদের প্রতি আরেকটু তদারকি বাড়ানো ও টয়লেট সমস্যা ইত্যাদি। বিগত সভায় যে সমস্যাগুলো উত্থাপিত হয়েছে সেগুলোর অগ্রগতি সাধিত হওয়ায় তারা কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।



অভিভাবকদের নিকট থেকে উত্থাপিত বিভিন্ন বিষয়/প্রস্তাবের আলোকে এসএমসি'র ভূমিকা আলোচনাপূর্বক বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোঃ শাহ আলম মলি্লক। অভিভাবকগণের উদ্দেশ্যে অ্যাকটিভ মাদার্স ফোরামের পরিচিতি ও তাঁদের কার্যক্রমের সংক্ষিপ্ত ধারণা প্রদান করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহজাহান সিদ্দিকী। তিনি সভায় অ্যাকটিভ মাদার্স ফোরামের সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেন এবং অ্যাকটিভ মাদার্স ফোরাম স্কুলে শিক্ষার মানোন্নয়নে কী ধরনের ভূমিকার রাখছে সে বিষয়ে আলোচনা করেন।



সনাকের সহ-সভাপতি ইসমত আরা সাফি বন্যার সঞ্চালনায় বিগত অভিভাবক সমাবেশের কার্যবিবরণীর সারসংক্ষেপ উপস্থাপন ও অগ্রগতি পর্যালোচনা করেন টিআইবি'র এরিয়া ম্যানেজার মোঃ মাসুদ রানা। শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া এবং বিশেষ করে নারী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ ও তা সমাধানে করণীয় বিষয়ক বক্তব্য রাখেন সনাক সদস্য কৃষ্ণা সাহা। অভিভাবক সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন সনাক সদস্য অধ্যাপক শাহানারা বেগম, মোঃ আব্দুল মালেক, এবিএম নজরুল আমিন সাজু, জেসমিন আক্তার, স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যবৃন্দ, অভিভাবক কমিটির সদস্য, স্কুলের শিক্ষকম-লী, স্কুলের শিক্ষার্থী, সনাক চাঁদপুরের ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস্ গ্রুপের সদস্য ও টিআইবি'র কর্মীবৃন্দ। এছাড়াও সনাক চাঁদপুরের ইয়েস গ্রুপের আয়োজনে বিদ্যালয়ের সেবা সম্পর্কিত তথ্যাবলি নিয়ে এআই ডেস্ক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। তারা অভিভাবক সমাবেশে উপস্থিত সকল অভিভাবকের মাঝে তথ্যপত্র বিতরণ করেন।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৭৮০৮৯
পুরোন সংখ্যা