চাঁদপুর। রোববার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ৩ আশ্বিন ১৪২৩। ১৫ জিলহজ ১৪৩৭
kzai
muslim-boys

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৫-সূরা ফুরকান

৭৭ আয়াত, ৬ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৪৫। তুমি কি তোমার প্রতিপালকের প্রতি লক্ষ্য কর না কিভাবে তিনি ছায়া সম্প্রসারিত করেন? তিনি ইচ্ছা করিলে ইহাকে তো স্থির রাখিতে পারিতেন; অনন্তর আমি সূর্যকে করিয়াছি ইহার নির্দেশক।        

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


যে ব্যক্তি হালাল পথে রুজি করে সে প্রকৃত মুসলমান।  

-হযরত আঃ কাদের জিলানী (রহঃ)।


বিনয় ও সৌজন্য ঈমানের দুই শাখা এবং বৃথা বাক্যালাপ ও জাঁকজমক কপটতা (মুনাফেকির) দুই শাখা।     

-হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)


বজ্রপাতে প্রাণ গেলো চাঁদপুর কালেক্টরেট স্কুল ছাত্রের
সাইফুল আজম
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চার বন্ধুসহ ঘুরতে যায় চাঁদপুর কালেক্টরেট স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র হৃদয় হোসেন (১৩)। কিন্তু বন্ধুরা কী জানতো এটাই হৃদয়ের সাথে তাদের শেষ বেড়ানো? পাঁচ বন্ধুই মায়ের কোলে ফিরেছে। তবে হৃদয় ফিরেছে লাশ হয়ে। বজ্রপাতে হৃদয়ের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। সুস্থ চঞ্চল যে ছেলেটি সকালে হাসি মুখে ঘর থেকে বের হয়ে গেলো, আর দুপুরে সে ছেলেটির নিথর দেহ বাবা-মার চোখের সামনে পড়ে রইলো, এটি যে কত বড় কষ্টের বেদনার তা বাবা-মার বুক ফাটা আর্তনাদে প্রকাশ পায়। আর এ দৃশ্য দেখে উপস্থিত কেউই চোখের পানি ধরে রাখতে পারে নি। হৃদয়ের করুণ এ মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটে গতকাল শনিবার দুপুর আনুমানিক ১টায় ফরিদগঞ্জের লোহাগড় মঠ এলাকায়।



শাহরাস্তি উপজেলার আয়নাতলী গ্রামের প্রবাসী ইব্রাহিম খলিল ও শিক্ষানবিশ আইনজীবী নিলুফা আক্তার দম্পতি দীর্ঘদিন ধরে চাঁদপুর শহরের পুরাতন আদালত পাড়ায় হুমায়ুন কবিরের বাসায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছেন। তাদের ২ ছেলে রয়েছে। ছোট ছেলে হৃদয় হোসেন জেলা প্রশাসন পরিচালিত চাঁদপুর কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। সে পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক)-এর একজন শিশু নৃত্যশিল্পীও। ঘটনার দিন সকালে ফরিদগঞ্জ উপজেলার বালিথুবা ইউনিয়নে লোহাগড় মঠ দেখতে যায় হৃদয়সহ পাঁচ বন্ধু সিয়াম, অন্তু, প্রিন্স ও তুরাগ। হৃদয়ের সাথে থাকা বন্ধুরা জানায়, দুপুর ১টার দিকে বৃষ্টি হলে তখন বজ্রপাত হয়। এ সময় হৃদয় হোসেন মঠের দরজায় দাঁড়িয়ে বৃষ্টির পানি নিয়ে দুষ্টামী করছিলো। অপর ৪ বন্ধু বজ্রপাতের বিকট শব্দ শুনে মঠের ভেতরে চলে যায়। আর ওই সময়ই বজ্রপাতের কিছু অংশ হৃদয় হোসেনের কোমরের বাম অংশে আঘাত হানে। এতে হৃদয় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে সাথের বন্ধুরা হৃদয়কে শুয়ে আছে ভেবে তাকে উঠাতে গেলে দেখতে পায় জ্ঞানশূন্য অবস্থায় সে পড়ে রয়েছে। পরে তারা হৃদয়ের বাসায় মোবাইল করে বিষয়টি জানিয়ে তাকে উপস্থিত লোকজনের সহায়তায় চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তখন হাসপাতালের কর্মরত চিকিৎসক ডাঃ রায়হান হৃদয়ের শারীরিক পরীক্ষা করে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।



এরই মধ্যে হাসপাতালে ছুটে আসেন হৃদয়ের মা-বাবাসহ আত্মীয়স্বজন। এ মৃত্যুর খবরে পুরো পুরাতন আদালত পাড়ায় শোকের ছায়া নেমে আসে। অনেকে সে বাসায় ভীড় জমায় এবং সকলে এমন করুণ মৃত্যু ও বাবা-মার আহাজারিতে শোকার্ত হয়ে উঠে। হৃদয়ের মৃত্যুর খবর শুনামাত্র পুলিশ সুপার ও পুনাক, চাঁদপুর-এর সভানেত্রী শামসুন্নাহার গভীর দুঃখ প্রকাশ করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। পুনাকের শিল্পী ও কর্মকর্তারা শেষবারের মতো হৃদয়কে দেখার জন্যে তার বাসায় ছুটে আসেন। রাতেই নিহত হৃদয়কে তার গ্রামের বাড়ি শাহরাস্তির আয়নাতলী গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয় এবং জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়।



 


এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৪৮০৫১
পুরোন সংখ্যা