চাঁদপুর। মঙ্গলবার ২১ আগস্ট ২০১৮। ৬ ভাদ্র ১৪২৫। ৯ জিলহজ ১৪৩৯
redcricent
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৪০-সূরা আল মু’মিন

৮৫ আয়াত, ৯ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৫৭। মানুষের সৃষ্টি অপেক্ষা নভোমন্ডল ও ভূ-মন্ডলের সৃষ্টি কঠিনতর। কিন্তু অধিকাংশ মানুষ বোঝে না।

৫৮। অন্ধ ও চক্ষুষ্মান সমান নয়, আর যারা বিশ্বাস স্থাপন করে ও সৎকর্ম করে এবং কুকর্মী তোমরা অল্পই অনুধাবন করে থাকো।

৫৯। কেয়ামত অবশ্যই আসবে, এতে সন্দেহ নেই; কিন্তু অধিকাংশ লোক বিশ^াস স্থাপন করে না।

৬০। তোমাদের পালনকর্তা বলেন, তোমরা আমাকে ডাক, আমি সাড়া দেব। যারা আমার এবাদতে অহংকার করে তারা সত্বরই জাহান্নামে দাখিল হবে লাঞ্ছিত হয়ে।      

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


যার বশ্যতার মধ্যে তোমার স্বার্থ নিহিত, তার সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ো না।        

-এরিস্টিটল

 


যে নামাজে হৃদয় নম্র হয় না, সে নামাজ খোদার নিকট নামাজ বলিয়াই গণ্য হয় না।


ফটো গ্যালারি
নভেম্বর রেইন
রবিউল ইসলাম
২১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


সেপ্টেম্বর ১২



বারান্দায় বসে কফি খাচ্ছিলো বিন্দু। এ সময়টাতে কুয়াশায় ঢাকা থাকে চারপাশ। আজকের সকালটা অনেক পরিষ্কার। কোনো কুয়াশা নেই। নিচে রাস্তার পাশে একটা জটলা বেঁধেছে। কিছু লোক উৎসুক চাহনী নিয়ে এ ওর দিকে তাকাচ্ছে।



বিন্দু চেয়ার ছেড়ে উঠে দাঁড়ালো। আরে! এটাতো সাহেদ! কয়েকদিন ধরে খুব জ্বালাচ্ছে ছেলেটা। কালকে রাতে তো সিনেমাটিক স্টাইলে বাড়ির নিচে এসে বললো, আমার উত্তর না পেয়ে যাবে না। তখন ব্যাপারটা অত কেয়ার করেনি বিন্দু। একটু পরে শীত বাড়লেই পাগলামো চলে যাবে।



কিন্তু না ছেলেটা সারারাত বাসার নিচে বসে ছিলো। ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় হাইপোথার্মিয়ায় আক্রান্ত হয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছে। এসব পাগলামোর কোনো মানে হয়? বিরক্তি লাগছে বিন্দুর। কিন্তু মনে মনে এই ভেবে খুশি হয় যে একটা ছেলে তার জন্যে এতো কষ্ট সহ্য করতে পারে।



মেয়েরা আসলে এমনই হয়। বাস্তবে আপনাকে সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের মতো ১শ' ৮টি নীলপদ্ম এনে দিতে হবে না, শুধু এটুকু বোঝাতে পারলেই হবে যে, আপনি তাকে অনেক ভালোবাসেন। ব্যাস!



 



অক্টোবর ৮



আজকে এক বিশাল কা- ঘটে গেছে। বইপড়ার সময় ছাদ থেকে একটা টিকটিকি এসে পড়লো বিন্দুর ওপর। সে কি চেচামেচি! মনে হলো ইসরাফিল (আঃ) বোধহয় সিঙ্গায় ফুৎকার দিয়ে দিয়েছেন। এখনি ধ্বংস হবে সব। এখনো শরীর কাঁপছে। কী হবে এখন! কী করবো? সাহেদকে একটা ফোন দিই।



হ্যালো সাহেদ।



আজকাল ছোটঘাট যা-ই ঘটুক সাহেদকে জানানো ফরজ হয়ে গেছে বিন্দুর। আর টিকটিকির মতো একটা মহাসাংঘাতিক ব্যাপার জানাবে না কেনো? সাহেদকে যে কত ভালোবাসে বিন্দু। সাহেদও ওর সব কথা মনোযোগ দিয়ে শোনে।



আসলে মেয়েরা বায়োলজিক্যালি মনোগামী হয়ে থাকে। মনপ্রাণ-সর্বোপরি সকল ভালোবাসা একজনকেই সঁপে দেয়। আর ছেলেরা ঠিক উল্টো। বহুগামী। এক পোশাকে প্রতিদিন চলে না ওদের। (আসলে দোষটা বায়োলজিক্যাল তথা জীনগত)।



 



 



অক্টোবর ২৪



ভালোবাসার সাথে সাথে উদ্দীপনাও বাড়ছে বিন্দুর। কি একটা ভয় আজকাল তাড়া করে বেড়ায় ওকে। খুব চিন্তিত থাকে। এ সময় অনেকক্ষণ ধরে ফোন বাজছে সেদিকে খেয়াল নেই বিন্দুর। আচমকা ফোনের দিকে তাকিয়ে দেখলো ফোন বাজছে। সাহেদের ফোন।



_হ্যালো সাহেদ।



_কতক্ষণ ধরে ফোন দিচ্ছি কোথায় ছিলে?



_ইয়ে, মানে, পাশেই ছিলাম। সাহেদ, নেঙ্ক্ট উইকেন্ডে আমরা দেখা করতে পারি? কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে আমার।



_হ্যাঁ, শিউর।



 



নভেম্বর ৩



_বলো কী গুরুত্বপূর্ণ কথা?



_প্রথমেই তোমাকে বলতে চেয়েছিলাম কিন্তু সাহস পাইনি। আমার একটা বিয়ে হয়েছিলো, কয়েকমাস পর ও বিদেশে চলে যায়। আর যোগাযোগ রাখেনি। বলেই কেঁদে ফেললো বিন্দু।



সাহেদ অনেকটা স্বাভাবিক ভঙ্গিতে বললো, আমিতো তোমার অতীতকে ভালোবাসিনি। বিন্দু সাহেদকে জড়িয়ে ধরলো। কান্না আরো বেড়ে গেলো। উষ্ণতা আদান-প্রদান হলো কিছুটা।



এরপর পুরো নভেম্বর জুড়েই চললো উষ্ণতার আদান-প্রদান। খুব কাছ থেকে, খুব বেশি কাছ থেকে। বিশ্বাসটা অনেক বেড়ে গেছে সাহেদের উপর। নূতন করে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে বিন্দু।



 



নভেম্বর ৩১



মুখোমুখি দাঁড়িয়ে বিন্দু আর সাহেদ। গত সপ্তাহে বিন্দুকে ছেড়ে বাবা-মায়ের পছন্দ করা মেয়েকে বিয়ে করেছে সাহেদ।



_স্বপ্নগুলো ভেঙে দিলে সাহেদ?



_না, তুমি চাইলে এখনো হবে।



কিছু বললো না বিন্দু। মনে মনে ভাবলো স্বপ্নগুলোও ধর্ষিত হয়।



লেখক : শিক্ষার্থী, ইতিহাস বিভাগ, চাঁদপুর সরকারি কলেজ।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৩২১৯৫
পুরোন সংখ্যা