চাঁদপুর। শনিবার ১৯ আগস্ট ২০১৭। ৪ ভাদ্র ১৪২৪। ২৫ জিলকদ ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৯-সূরা আনকাবূত


৬৯ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৩৩। এবং যখন আমার প্রেরিত ফিরিশতাগণ লূতের নিকট আসিল, তখন তাহাদের জন্য সে বিষন্ন হইয়া পড়িল এবং নিজকে তাহাদের রক্ষায় অসমর্থ মনে করি। উহারা বলিল, ‘ভয় করিও না, দুঃখও করিও না; আমরা তোমাকে ও তোমার পরিবারবর্গকে রক্ষা করিব, তোমার স্ত্রী ব্যতীত; সে তো পশ্চাতে অবস্থানকারীদের অন্তর্ভুক্ত;


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

বিপদকে বিপদ দিয়েই অতিক্রম করা যায়।



-টমাস ফুলার।


মায়ের পদতলে সন্তানের বেহেশত।।  


ফটো গ্যালারি
উদ্যোগটি প্রশংসনীয়, হোক দীর্ঘস্থায়ী
১৯ আগস্ট, ২০১৭ ২০:৩৫:১৪
প্রিন্টঅ-অ+
চাঁদপুর জেলায় নদী ভাঙ্গনে সবচে’ ক্ষতিগ্রস্ত, বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক অবহেলিত হাইমচর উপজেলার প্রত্যন্ত চরাঞ্চলের একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ছিলেন শাহাদাৎ মিয়াজী। তিনি একজন কবি। প্রায় পাঁচ বছর পূর্বে তিনি আমেরিকা চলে যান। কিন্তু ভুলে যাননি নিজ উপজেলার বিভিন্ন সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের কথা। সেজন্যে সুদূর প্রবাসে থেকেই প্রধান উদ্যোক্তা হয়ে গঠন করেন হাইমচর এডুকেশন ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট। কিছুদিন আগে তিনি ছুটিতে দেশে আসেন। এসেই তাঁর এই ট্রাস্টের মাধ্যমে উপজেলার প্রয়াত ও জীবিত গুণীজনদের সংবর্ধনা জ্ঞাপন এবং এই ট্রাস্টের আওতায় বৃত্তিপ্রাপ্ত ১১৯ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে নগদ অর্থ, সনদ ও সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদানের উদ্যোগ নেন। গত ১৪ আগস্ট উপজেলা সদরস্থ হাইমচর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কয়েক লক্ষ টাকা ব্যয়ে তাঁর এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেন। এ উপলক্ষে তিনি ‘বাতিঘর’ নামে চার রঙে ছাপা একটি রুচিশীল স্মরণিকাও প্রকাশ করেন।

        হাইমচরের রাজনৈতিক-অরাজনৈতিক সুধীবৃন্দের প্রচ্ছন্ন সমর্থনে হাইমচর এডুকেশন ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের উক্ত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন গুণীজন, শিক্ষাবিদ, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মিলন মেলা ঘটে। গতানুগতিকতা থাকলেও অনুষ্ঠানটিতে ছিলো আবেগীয় উচ্ছ্বাস। সেজন্যে অনুষ্ঠানটি অংশগ্রহণকারীদের হৃদয় স্পর্শ করে। কিন্তু এই উদ্যোগকে দীর্ঘস্থায়ী করতে হলে ভবিষ্যতে ব্যতিক্রম কিছু সংযোজন করতে হবে এবং অভিনবত্ব উপস্থাপন করতে হবে। অদম্য মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্যে বিশেষ বিবেচনায় কিছু করাটাই হতে পারে ব্যতিক্রম। আর অভিনবত্বের বিষয়ে উদ্যোক্তাদের প্রয়োগ করতে হবে উদ্ভাবনী চিন্তা-চেতনা। সর্বোপরি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের দীর্ঘস্থায়িত্বের প্রশ্নে একক কোনো দাতার ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে এর সাথে হাইমচর উপজেলার অন্যান্য দাতার সংশ্লিষ্টতা সৃষ্টির আন্তরিক প্রয়াস চালাতে হবে। এছাড়া ট্রাস্টের কমিটি, যে কোনো পর্যায়ের সদস্যদের কিংবা আগ্রহী শিক্ষানুরাগীদের ক্ষুদ্র-বৃহৎ অনুদান গ্রহণ, ব্যাংকে হিসাব খোলা এবং আয়-ব্যয়ের হিসাব সংরক্ষণে স্বচ্ছতার প্রমাণ সৃষ্টির বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। আশা করি মেধাবী উদ্যোক্তা বা উদ্যোক্তাগণ প্রাগুক্ত বিষয়গুলো বিবেচনায় রেখে তাঁদের মহতী উদ্যোগ দীর্ঘস্থায়ী করার পরিকল্পনা গ্রহণ করে হাইমচরে শিক্ষার গুণগত মান সৃষ্টিতে কালজয়ী অবদান রাখতে সক্ষম হবেন।

এই পাতার আরো খবর -
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪১৮৮৩০
পুরোন সংখ্যা