চাঁদপুর, মঙ্গলবার ৭ জানুয়ারি ২০২০, ২৩ পৌষ ১৪২৬, ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • শাহরাস্তিতে ডাকাতি মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড ও ৪ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে চাঁদপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালত। || 
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৬০-সূরা মুমতাহিনা


১৩ আয়াত, ২ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


১০। হে মু'মিনগণ ! তোমাদের নিকট মু'মিন নারীরা হিজরত করিয়া আসিলে তাহাদিগকে পরীক্ষা করিও; আল্লাহ তাহাদের ঈমান সম্বন্ধে সম্যক অবগত আছেন। যদি তোমরা জানিতে পার যে, তাহারা মু'মিন তবে তাহাদিগকে কাফিরদের নিকট ফেরত পাঠাইও না। মু'মিন নারীগণ কাফিরদের জন্য বৈধ নহে এবং কাফিরগণ মু'মিন নারীদের জন্য বৈধ নহে। কাফিররা যাহা ব্যয় করিয়াছে তাহা উহাদিগকে ফিরাইয়া দিও। অতঃপর তোমরা তাহাদিগকে বিবাহ করিলে তোমাদের কোন অপরাধ হইবে না যদি তোমরা তাহাদিগকে তাহাদের মোহর দাও। তোমরা কাফির নারীদের সহিত দাম্পত্য সম্পর্ক বজায় রাখিও না। তোমরা যাহা ব্যয় করিয়াছ তাহা ফেরৎ চাহিবে এবং কাফিররা ফেরৎ চাহিবে যাহা তাহারা ব্যয় করিয়াছে। ইহাই আল্লাহর বিধান; তিনি তোমাদের মধ্যে ফয়সালা করিয়া থাকেন। আল্লাহ সর্বজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।


 


 


বুদ্ধিজীবীরাই দেশের সম্পদ, তারাই দেশের সম্পদ তুলে ধরে।


-লংফেলো।


 


 


 


বিদ্যালাভ করা প্রত্যেক মুসলিম নর-নারীর জন্যে অবশ্য কর্তব্য।


 


 


ফটো গ্যালারি
চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
শিক্ষা বিস্তারে ডাঃ দীপু মনির সর্বোচ্চ সাফল্য
প্রফেসর ড. এম. মেসবাহউদ্দিন সরকার
০৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


দেশের ৪৬তম বিশ্ববিদ্যালয় হতে যাচ্ছে মেঘনার তীর চাঁদপুরে। বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম নদীবন্দর এবং জাতীয় মাছ ইলিশের সুনামের সাথে এবার চাঁদপুরবাসীর সাথে যুক্ত হচ্ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। চাঁদপুরবাসীর দীর্ঘদিনের আকাঙ্ক্ষা ও স্বপ্নপূরণ হতে যাচ্ছে খুব শীঘ্রই। বর্তমান সরকারের মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির আন্তরিকতা ও ইচ্ছার দ্রুততম ফসল হচ্ছে এ বিশ্ববিদ্যালয়। মাননীয় মন্ত্রী দ্রুততম সময়ে এ রকম একটি নজির স্থাপন করে চাঁদপুরবাসীকে আবারো তাঁর কৃতজ্ঞতা পাশে আবদ্ধ করলেন। আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপনার মধ্যে প্রথম যে একাডেমিক ভবন কিংবা ছাত্রী নিবাসটি স্থাপন করা হবে_তা হোক আপনার নামে। অর্থাৎ 'ডাঃ দীপু মনি একাডেমিক ভবন' অথবা 'ডাঃ দীপু মনি ছাত্রী নিবাস'_যাতে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তথা চাঁদপুরবাসী আপনাকে স্মরণে রাখে আজীবন।



 



এটি হবে একটি আধুনিক প্রযুক্তিবিষয়ক বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রযুক্তিবিষয়ক সকল বিষয়ের সাথে থাকবে মৎস্য বিভাগ যাতে বিজ্ঞানীরা চাঁদপুরে বসেই ইলিশ মাছসহ বিশ্ব মানের মৎস্য গবেষণা করতে পারে। প্রযুক্তিবিষয়ক আরো কি কি বিষয় বিভাগ থাকা দরকার তা পরবর্তীতে কোনো এক লেখায় লিপিবদ্ধ করবো ইনশাআল্লাহ। যদিও 'চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের আলোকে ১৪টি অনুষদ এবং হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের আলোকে ২৩টি অনুষদ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সংবিধি খসড়া আইনও এর সঙ্গে রয়েছে।'



 



গত ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯ সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপ্রধানে তাঁর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে নতুন দুটি বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত দুটি আইনের খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়। বাংলাদেশে বর্তমানে ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। নতুন দুটি নিয়ে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা দাঁড়াবে ৪৮টি।



 



মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন এবং হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।



 



উল্লেখ্য, গত ১৯ আগস্ট সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১৯-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈঠকশেষ দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।



 



অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো এ বিশ্ববিদ্যালয়েও চ্যান্সেলর হবেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি, সিন্ডিকেটের গঠন সম্পর্কে বলা আছে ভাইস চ্যান্সেলর, প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর, ট্রেজারার, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন চেয়ারম্যান কর্তৃক মনোনীত একজন প্রতিনিধি, সরকার কর্তৃক মনোনীত যুগ্ম সচিব পদমর্যাদার একজন প্রতিনিধি, সরকার কর্তৃক মনোনীত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান থেকে একজন প্রতিনিধি এবং চ্যান্সেলর কর্তৃক মনোনীত তিনজন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ থাকবেন। অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল যেভাবে হয় এ বিশ্ববিদ্যালয়েও সেভাবে হবে।



 



বাংলাদেশে বিপুল পরিমাণ শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষা প্রদানের উদ্দেশ্যে বর্তমানে ৪৫টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচালিত এ সকল বিশ্ববিদ্যালয় সরকারের অর্থায়নে প্রতিষ্ঠা করা হয়। ঢাকা বিভাগে ১২টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে ৮টি ঢাকা শহরে, ৩টি গাজীপুরে এবং ১টি সাভারে অবস্থিত। চট্টগ্রাম বিভাগে ৭টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে ৪টি চট্টগ্রামে, ১টি রাঙামাটিতে, ১টি নোয়াখালীতে ও ১টি কুমিল্লায় অবস্থিত। খুলনা বিভাগে ৫টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে ৩টি খুলনায়, ১টি যশোরে এবং ১টি কুষ্টিয়ায় অবস্থিত। রাজশাহী বিভাগে ৪টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে ২টি রাজশাহীতে, ১টি পাবনায় এবং ১টি সিরাজগঞ্জে অবস্থিত। বরিশাল বিভাগে ২টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে ১টি বরিশালে এবং ১টি পটুয়াখালীতে অবস্থিত। সিলেট বিভাগে ২টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। রংপুর বিভাগে ২টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে, যার মধ্যে ১টি রংপুর শহরে এবং ১টি দিনাজপুরে অবস্থিত। ময়মনসিংহ বিভাগে ৪টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে যার মধ্যে ১টি নেত্রকোনা জেলায়, ১টি জামালপুর জেলায় ও ২টি ময়মনসিংহ জেলায় অবস্থিত।



 



বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়সমূহ মূলত তিনটি শ্রেণিতে ভাগ করা হয়েছে : সরকারি (সরকারি মালিকানাধীন), বেসরকারি (বেসরকারি মালিকানাধীন) এবং আন্তর্জাতিক (আন্তর্জাতিক সংগঠন কর্তৃক পরিচালিত)। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ১৯২১ সালে প্রতিষ্ঠিত, দেশের প্রাচীনতম বিশ্ববিদ্যালয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস আয়তনের দিক থেকে দেশের সর্ববৃহৎ বিশ্ববিদ্যালয়। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭০ সালে। এটি বাংলাদেশের একমাত্র আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়। লাল-সবুজে বেষ্টিত অত্যন্ত মনোরম পরিবেশে এখানে শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম চলছে এবং এখানেই কর্মরত আছেন বাংলাদেশের প্রথম নারী উপাচার্য প্রফেসর ডক্টর ফারজানা ইসলাম।



 



বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়সমূহ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অধিভুক্ত; যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রপতি আদেশ (১৯৭৩ সালের পি.ও. নং ১০) অনুযায়ী গঠিত একটি কমিশন। বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায়, প্রকৌশল এবং প্রযুক্তি গবেষণা এলাকা সমন্বয়ে, সাধারণ গবেষণার উপর আলোকপাত করে থাকে। সাতটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ পাঠক্রম রয়েছে, যার মধ্যে দুইটি ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, দুইটি কৃষি বিজ্ঞান, একটি স্বাস্থ্য বিজ্ঞান, একটি ভেটেরিনারি মেডিসিন এবং একটি নারী গবেষণার বিষয়ক।



 



উল্লেখ্য, উচ্চশিক্ষার স্বাচ্ছন্দ্য নিশ্চিত করতে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগ প্রতিটি জেলায় একটি করে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।



 



লেখক : পরিচালক,



ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।



 



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৯৫১০৯৭
পুরোন সংখ্যা