চাঁদপুর। শনিবার ১৯ আগস্ট ২০১৭। ৪ ভাদ্র ১৪২৪। ২৫ জিলকদ ১৪৩৮

বিজ্ঞাপন দিন

বিজ্ঞাপন দিন

সর্বশেষ খবর :

  • ---------
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৯-সূরা আনকাবূত


৬৯ আয়াত, ৭ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


৩৩। এবং যখন আমার প্রেরিত ফিরিশতাগণ লূতের নিকট আসিল, তখন তাহাদের জন্য সে বিষন্ন হইয়া পড়িল এবং নিজকে তাহাদের রক্ষায় অসমর্থ মনে করি। উহারা বলিল, ‘ভয় করিও না, দুঃখও করিও না; আমরা তোমাকে ও তোমার পরিবারবর্গকে রক্ষা করিব, তোমার স্ত্রী ব্যতীত; সে তো পশ্চাতে অবস্থানকারীদের অন্তর্ভুক্ত;


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন

বিপদকে বিপদ দিয়েই অতিক্রম করা যায়।



-টমাস ফুলার।



যে ব্যক্তির স্বভাবে নম্রতা নেই, সে সর্বপ্রকার কল্যাণ হতে বঞ্চিত। 


 

দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকের সাক্ষাৎকার : শাহীন আক্তার
বিতার্কিকদের বক্তব্য অধিক মনোযোগ দিয়ে শুনে বিচারকদের বিচারকার্য করা প্রয়োজন
বিতর্কায়ন প্রতিবেদন
১৯ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


শাহীন আক্তার, সহকারী শিক্ষক, নিজমেহার মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, শাহরাস্তি, চাঁদপুর। তিনি তাঁর বিদ্যালয়ের বিতর্ক দলের নিষ্ঠাবান দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক। তিনি ৯ম পাঞ্জেরী-চাঁদপুর কণ্ঠ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় নিজের দলকে সেরা ষোলোতে উন্নীত করতে সক্ষম হয়েছেন। 'বিতর্কায়নে'র প্রশ্নের জবাবে বলেছেন সাবলীল কিছু কথা। নিম্নে তা তুলে ধরা হলো-



বিতর্কায়ন : ছাত্রজীবনে কি বিতর্ক করেছেন, না পেশাগত জীবনে এসে অর্পিত দায়িত্বের কারণে বিতর্ককে ভালোবেসে ফেলেছেন ?



শাহীন আক্তার : ছাত্রজীবনে বিতর্ক করেছি। আসলে বিতর্ককে আমি খুব ভালোবাসি। আর এ কারণেই আমি বিটিভিতে প্রচারিত বিতর্ক অনুষ্ঠান প্রায়ই সময় পেলে দেখি। পেশাগত জীবনে ও দায়িত্বের কারণে বিতর্কের সাথে থাকার সুযোগটা পেয়েছি।



বিতর্কায়ন : বিতর্কের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক হিসেবে আনন্দ ও বেদনার অভিজ্ঞতা কী কী ?



শাহীন আক্তার : আমার স্কুলের বিতার্কিকরা যখন দেখি এত বড় একটা প্রতিযোগিতায় এসে অনেক অভিজ্ঞ মানুষের সামনে দাঁড়িয়ে বিষয়ভিত্তিক প্রাসঙ্গিক যুক্তিগুলো তুলে ধরে এবং জয়কে ছিনিয়ে আনে, তখন ওদের হাসি দেখে আমার খুব আনন্দ হয়।



বিতর্কায়ন : নিজ বিতর্ক দল হেরে গেলে যৌক্তিকভাবে তা মেনে নেন, না অন্য কিছু ভাবেন ?



শাহীন আক্তার : নিজ বিতর্ক দল হেরে গেলে যৌক্তিকভাবে তা মেনে নেই। কারণ হারজিৎ থাকবেই। কোনো না কোনো দলকে তো হারতে হবেই।



বিতর্কায়ন : 'যে আসে বিতর্কে সে হারে না'_ আপনি কি এ কথায় বিশ্বাস করেন ?



শাহীন আক্তার : যে আসে বিতর্কে সে হারে না-এ কথায় আমি বিশ্বাস করি। কারণ এর মধ্য দিয়ে তারা যা শিখল তা ভবিষ্যতে কাজে লাগাতে পারবে এবং আগামী দিনের প্রত্যয়ে এগিয়ে যেতে শিখবে।



বিতর্কায়ন : আমাদের বিতর্কের বিচারকার্য নিয়ে আপনার কোনো গঠনমূলক পরামর্শ বা ইতিবাচক সমালোচনা আছে কি ?



শাহীন আক্তার : বিতর্ক যারা বুঝেন, জানেন এবং বিতর্কের বিষয়ের উপর পুরোপুরি ধারণা আছে এমন বিচারক দিয়ে বিচারকার্য পরিচালনা করা এবং বিতর্কে বিতার্কিকদের বক্তব্য অধিক মনোযোগ দিয়ে শুনে বিচারকদের বিচারকার্য করা প্রয়োজন।



বিতর্কায়ন : উপরোক্ত প্রশ্নমালার বাইরে আপনার কোনো বক্তব্য থাকলে বা নিজ জীবন সম্পর্কে কিছু বলতে পারেন।



শাহীন আক্তার : আমার জীবনে যতটুকু ব্যর্থতা, যতটুকু অপ্রাপ্তি ছিল তা আমি আমার ছাত্রীদের অনুশীলনের মাধ্যমে তাদের জীবনে সফলতার মাধ্যমে দূর করতে চাই।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৮১৯৬১
পুরোন সংখ্যা