চাঁদপুর। বুধবার ২৫ জানুয়ারি ২০১৭। ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৬-সূরা শু’আরা


২২৭ আয়াত, ১১ রুকু, ‘মক্কী’


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


২১২। উহাদিগকে তো শ্রবণের সুযোগ হইতে দূরে রাখা হইয়াছে।


২১৩। অতএব তুমি অন্যকোন ইলাহ্কে আল্লাহ্র সহিত ডাকিওনা, ডাকিলে তুমি শাস্তিপ্রাপ্তদের অন্তর্ভুক্ত হইবে।


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


অন্ধ ব্যক্তিরাই পৃথিবীর বেশি ভাগ্যহত। 


                        -ডিকের্ন্স।


যারা এক মুখে দুই কথা বলে, তারা মানুষের মধ্যে সর্বাপেক্ষা নিকৃষ্ট ব্যক্তি।


 

ফটো গ্যালারি
আলুবীজ লাল ও সাদা রঙের উদ্ভাবন
কৃষিকণ্ঠ প্রতিবেদক
২৫ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

দীর্ঘ গবেষণায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) লবণাক্ত সহিষ্ণুতা লাল ও সাদা রঙের আলু বীজের উদ্ভাবন করেছে উষ্ণ তাপের কারণেও কিছু কিছু এলাকায় আলুর ফলন তেমন ভালো হয় না। আর এ উষ্ণ তাপ সহিষ্ণু আলু বীজও উদ্ভাবন করেছে বারি।এতে অনেকটা সুখবরের বার্তা কৃষকদের মাঝে। আর তৃণমূলের কৃষকরা এর সুফল পাবেন চলতি মৌসুম থেকেই। বিস্তৃতি ঘটবে আলু চাষের। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বারি) অধীনে কন্দাল গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানীদের গবেষণায় এ সফলতা মিলেছে। সমপ্রতি বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) ৭২ ও ৭৩ নামের দুটি নতুন জাতের আলু চাষের জন্যে অবমুক্ত করেছে। কৃষি মন্ত্রণালয়ে জাতীয় বীজ বোর্ডের সভায় এ দুটি জাত অবমুক্ত করা হয়। এবারই প্রথম তাপ (বারি আলু-৭৩) এবং তাপ ও লবণাক্ত-সহিষ্ণু বারি আলু-৭২-এ দুই জাতের আলু উদ্ভাবনে সফলতা মিলছে বলে কৃষিকণ্ঠ'কে জানান মহাপরিচালক (ডিজি) মোঃ রফিকুল ইসলাম মন্ডল।

বারির কন্দাল বিভাগের প্রধান ড. মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, গত চারবছর পূর্বে আমরা জানতে পারি পেরুতে অবস্থিত আন্তর্জাতিক আলু কেন্দ্রে লবণাক্ত ও তাপ সহিষ্ণু জাত আছে। আমরা এ খবরটি পেয়েই আন্তর্জাতিক আলু কেন্দ্রের ঢাকা অফিসের মাধ্যমে এ জাত এনে দীর্ঘ গবেষণা চালাই। এ গবেষণায় বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আবদুল্লাহ আল মাহমুদের নেতৃত্বে চারজন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা কাজ করেন। তাদের আপ্রাণ চেষ্টার ফসল আমরা পেয়েছি। কীভাবে কৃষকরা এ দুটি জাতের বীজ পেতে পারেন এমন প্রশ্নের জবাবে জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, আগামী মৌসুমে চাষিরা চাইলে বারি কন্দাল ফসল গবেষণা কেন্দ্রে থেকে বীজ সংগ্রহ করতে পারবেন। বীজ ও সমপ্রসারণের জন্যে মূলত প্রধান কার্যক্রম সম্পাদন করে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কাউন্সিল (বিএডিসি) ও কৃষি সমপ্রসারণ অধিদফতর। মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে সিদ্বান্ত হবে কীভাবে পরবর্তীতে জাত দুটির বীজ ও সমপ্রসারণ হবে। পরের বছর থেকে ব্রিডার বীজ দেয়া হবে বিএডিসিকে।

২০১১-১২ সালে ১০টি তাপ সহনশীল ও ১৫টি লবণাক্ততা সহিষ্ণু সিআইপি জার্মপ্লাজম সংগ্রহের মাধ্যমে শুরু হয় গবেষণা কার্যক্রম। উভয় জাতের ফলন হেক্টর প্রতি প্রায় ২৫ থেকে ২৮ টন পর্যন্ত হবে।তাপ ও লবণাক্ত - সহিষ্ণু জাতের আলুর রং লাল ও শুধু তাপ সহিষ্ণু জাতের আলুর রং সাদা হবে। অন্যান্য সাধারণ আলু জাতের মতোই পরিচর্যা করতে হবে। বারি সূত্র জানায়, এ পর্যন্ত আলুর ৭১টি জাত উদ্ভাবিত হয়েছে। এগুলোর মধ্যে প্রধান মোড়ক রোগ( লেইট ব্রাইড) সহশীল-প্রতিরোধী দুটি, নিজস্ব শঙ্করায়ণের মাধ্যমে ১৩টি, জার্মপ্লাজম থেকে ছয়টি ও বাকিগুলো বিদেশী জাত থেকে উদ্ভাবিত।

আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৫২০১৮
পুরোন সংখ্যা