চাঁদপুর। বৃহস্পতিবার ২৫ আগস্ট ২০১৬। ১০ ভাদ্র ১৪২৩। ২১ জিলকদ ১৪৩৭
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৫-সূরা ফুরকান

৭৭ আয়াত, ৬ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৯। আল্লাহ মুশরিকদিগকে বলিবেন, ‘তোমরা যাহা বলিতে উহারা তাহা মিথ্যা সাব্যস্ত করিয়াছে। সুতরাং তোমরা শাস্তি প্রতিরোধ করিতে পারিবে না এবং সাহায্যও পাইবে না। তোমাদের মধ্যে যে সীমালঙ্ঘন করিবে আমি তাহাকে মহাশাস্তি আস্বাদন করাইব।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


সুন্দর জিনিস চিরকালের আনন্দ।

-কিটস।


নামাজে তোমাদের কাতার সোজা কর, নচেৎ আল্লাহ তোমাদের অন্তরে মতভেদ ঢালিয়া দিবেন।  

-হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)


ফটো গ্যালারি
বৃক্ষ মেলায় গাছের চারা কম বিক্রি হওয়ায় নার্সারীর মালিকদের অসন্তোষ
কৃষি কণ্ঠ প্রতিবেদক
২৫ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

চাঁদপুর স্টেডিয়ামে সপ্তাহব্যাপী কৃষি প্রযুক্তি ও বৃক্ষ মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ মেলা গত ১ আগস্ট থেকে ৭ আগস্ট পর্যন্ত চলে। মেলায় বিপুল পরিমাণ গাছের চারার সমাহার ঘটলেও কম বিক্রি হওয়ায় নার্সারীর মালিকরা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

মেলার উদ্বোধন ব্যাপক আয়োজনের মাধ্যমে শুরু হলেও সপ্তাহব্যাপী মেলায় ছিলো ক্রেতা শূন্য। মেলায় বেচা- বিক্রি ২য় দিনেও না হওয়ায় কয়েকজন নার্সারীর মালিক চলে গেছেন। যারা ছিলেন তারা এ বছর ১০ হাজার টাকার গাছও বিক্রি করতে পারেনি। যেখানে অন্যান্য বছর মেলায় ৫ থেকে ৭ লাখ টাকার গাছ বিক্রি করেছেন নার্সারীর মালিকরা। এ বছর প্রতিদিনই তাদের লোকসানই গুণতে হয়েছে।

চৌধুরী নার্সারীর মালিক মাসুদ চৌধুরী বলেন, মেলা গত ৭ আগস্ট শেষ হয়েছে। গাড়ি ভাড়া বেশি, তাই ভ্যান গাড়িতে করে ফেরি করে বিক্রি করছি। চাঁদপুর স্টেডিয়ামে মেলা হওয়ায় গাছ বিক্রি কম হয়েছে। এখানে যে কৃষি মেলা হয়েছে মানুষজন জানতোনা। হাসান আলী হাইস্কুল মাঠে গত বছর প্রথম দিনই ৮০-৯০ হাজার টাকার গাছ বিক্রি করেছি। আর এ বছর চাঁদপুর স্টেডিয়ামে মেলার প্রথম দিনই কোনো গাছ বিক্রি করতে পারিনা।

মেলায় চাঁদপুরের নামিদামি নার্সারীগুলো স্টল সাজিয়েছে। তাদের মধ্যে পুলিশ লাইনস্ নার্সারী, চৌধুরী নার্সারী, মায়ের দোয়া নার্সারী, হারুন নার্সারী ও আদর্শ বনলতা নার্সারী। প্রতিটি নার্সারীর স্টলে ছিলো দেশি- বিদেশি ফলদ-বনজ বৃক্ষ। এছাড়া এখানে ছিলো বাহারি রকমের ফুলগাছ।

এ ব্যপারে কথা হয় চাঁদপুর জেলা কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (প্রশিক্ষক) নোয়াখেরুল ইসলামের সাথে। তিনি কৃষি মেলার সমস্যাগুলো স্বীকার করে বলেন, আসলে দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে সব মহলে উদ্বেগ রয়েছে। এ জন্যে এখানে করা হয়েছে। আমাদেরও কৃষি প্রযুক্তির কতগুলো প্রোপ্রাম ছিলো আবহাওয়া অনুকূল না থাকায় এবং দর্শনার্থীদের উপস্থিতি কম থাকার জন্যে করতে পারিনা।

আজকের পাঠকসংখ্যা
১৮০১০৪
পুরোন সংখ্যা