চাঁদপুর। বৃহস্পতিবার ২৮ জুলাই ২০১৬। ১৩ শ্রাবণ ১৪২৩। ২২ শাওয়াল ১৪৩৭
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ আরো ৯ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ২১৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৪-সূরা নূর

৬৪ আয়াত, ৯ রুকু, ‘মাদানি’

পরম করুণাাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৫৩। উহারা দৃঢ়ভাবে আল্লাহর শপথ করিয়া বলে যে, তুমি উহাদিগকে আদেশ করিলে উহারা অবশ্যই বাহির হইবে; তুমি বল, ‘শপথ করিওনা, যথার্থ অনুগত্যই কাম্য। তোমরা যাহা কর নিশ্চয়ই ্আল্লাহ সে বিষয়ে সবিশেষ অবহিত।  

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


হতাশা এবং অবিশ্বাস উভয়েই ভীতি দূর করে।      


-উইলিয়াম আলেকজান্ডার।


মায়ের পদতলে সন্তানদের বেহেশত।

-হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)


ফটো গ্যালারি
উৎপাদনে পেয়ারা শীর্ষে
কৃষি কণ্ঠ প্রতিবেদক
২৮ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


আম-কাঁঠাল মৌসুম আমাদের দেশে অনেকটা টেস্ট ক্রিকেটের মতোই লম্বা। গ্রীষ্মের ফল হলেও বর্ষা পেরিয়ে শরৎ পর্যন্ত তার বিস্তরণ। সে তুলনায় অন্যান্য মৌসুমী ফলের অবস্থা স্বল্প দৈর্ঘ্য টি-টোয়েন্টির মতোই। এখন চলছে পেয়ারার মৌসুম। দেশে বর্র্ষার ফলের মধ্যে পেয়ারা জনপ্রিয় ও উৎপাদনের দিক থেকে শীর্ষে। এ ফল বাড়ির আঙ্গিনায় ঘরের পাশে অথবা বাসার ছাদে ও সুবিধা জনক স্থানে চাষ করা যায়।



চাঁদপুরের ফলের দোকানগুলোতে তো বটেই ঝুঁড়িভরা ডাসা পেয়ারা নিয়ে বিক্রেতারা বসে গেছেন স্কুল-কলেজের সামনে, অফিসপাড়ায়, ফুটপাতে, পাড়া-মহল্লায়র গলির মোড়ে। পেয়ারার এখন ভরা মৌসুম। দামও বেশ কমে এসেছে। মোটামুটি ৪০-৫০টাকায় এখন পাওয়া যায় এক কেজি। আরও মাস খানেক থাকবে পেয়ারা পর্যাপ্ত সরবরাহ হবে বলে ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।



গ্রামে-মফস্বলে বাড়ির উঠানে বা আশেপাশে পেয়ারা গাছ খুব সাধারণ দৃশ্য। এখন তো আরও সুবিধা। শহরেও বাড়ির ছাদে বড় আকারের টবে বা ড্রামে দিব্যি পেয়ারা লাগানো যায়। হাইব্রিড জাতের ছোটখাটো এসব গাছে ফলনও কম নয়। অথচ শুনতে বেশ অবাকই মনে হবে যে, দেশের সর্বত্রই সহজলভ্য অতি চেনা এই গাছটি আমাদের দেশে বহিরাগত। এটি আমাদের নিজস্ব উদ্ভিদ নয়। উদ্ভিদ বিজ্ঞানীদের ধারণা আমেরিকার উষ্ণম-লীয় দেশগুলো পেয়ারার আদি জন্মস্থান। কৃষিবিদ মৃত্যুঞ্জয় রায় তাঁর বাংলার বিচিত্র ফল বইতে উল্লেখ করেছেন, মেঙ্েিকা, পেরু হয়ে বিভিন্ন দেশ ঘুরে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে এসেছে পেয়ারা। এখন উৎপাদনকারী প্রধান দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশসহ রয়েছে ভারত, শ্রীলঙ্কা, মিয়ানমার, থাইল্যা-, মালয়েশিয়া, হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জ, কিউবা, মেঙ্েিকা ও ব্রাজিল। বাংলাদেশ কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের হিসাব অনুপাতে, দেশে এখন ১০ হাজার হেক্টরের বেশি জমিতে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে পেয়ারার চাষ হচ্ছে। বার্ষিক উৎপাদন ছাড়িয়ে গেছে ৫০ হাজার মেট্রিক টন। বাণিজ্যিক ভিত্তিতে সবচেয়ে বেশি পেয়ারা উৎপন্ন হয় স্বরূপকাঠি, বরিশাল, ঝালকাঠি, পিরোজপুর ও চট্টগ্রাম এলাকায়। চাষ লাভজনক হওয়ায় ক্রমেই এর চাষের বিস্তার ঘটেছে। নরসিংদী, গাজীপুর, খুলনা, কুমিল্লা ও পাবনার ঈশ্বরদী এলাকায় অনেক বাণিজ্যিক বাগান গড়ে উঠেছে।



পেয়ারার গুণকীর্তন নতুন করে আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। পেয়ারা ভক্ষণে উৎসাহ দিতো আর তার তুলনা করা হতো আপেলের সঙ্গে। দামে সস্তা অথচ আপেলের চেয়েও পেয়ারার পুষ্টিমান অধিক_এমন বলা হতো।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
১৯৩১০৮
পুরোন সংখ্যা