চাঁদপুর। বুধবার ২৫ মে ২০১৬। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৩। ১৭ শাবান ১৪৩৭
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুরে আরো ১২ জনের করোনা শনাক্ত, মোট আক্রান্ত ১৫৯
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২৩-সূরা মু’মিনূন

১১৮ আয়াত, ৬ রুকু, ‘মক্কী’

পরম করুণাাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

৯৪। ‘তবে, হে আমার প্রতিপালক ! তুমি আমাকে যালিম সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত করিও না।

৯৫। আমি তাহাদিগকে যে বিষেেয় প্রতিশ্রুত প্রদান করিতেছি আমি তাহা তোমাকে দেখাইতে অবশ্যই সক্ষম।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


নম্রতা-ভদ্রতা, গুণই দুটি মানুষের জীবনের পুরাতন ঐশ্বর্য।

-জন স্টুয়ার্ড মিল।


নীরবতাই শ্রেষ্ঠতম এবাদত।    

-হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)


ফটো গ্যালারি
বিষ্ণুপুরে একমাত্র ছাগলটি হারিয়ে মনোয়ারার চোখের পানি পড়ছেই!** ছবি- ৩০
কৃষিকণ্ঠ প্রতিবেদক
২৫ মে, ২০১৬ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+

অভাবের সংসার। দুবেলা খাবারের ব্যবস্থা করতেই হিমশিম খেতে হয় প্রায়ই। হতদরিদ্র স্বামীকে সাবলম্বী করতে একটি ছাগল কিনে পালন শুরু করে। ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস। কুকুরে কামড়ানোর ১৮ দিন পর সঠিক চিকিৎসার অভাবে ১০ হাজার টাকা মূল্যের সেই ছাগলটির মৃত্যু হয়। কি হবে পরিবারের অবস্থা এ ভেবেই সারাদিন চোখে পানি পড়ছে মনোয়ারার।

চাঁদপুর সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের রাজমিস্ত্রী নূরুল ইসলাম আখন্দের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম। ২ ছেলে ও ২ মেয়ে নিয়ে সংসার। স্বামীর রোজগারের টাকায় সংসার চালানো খুব কষ্টকর। বাড়তি রোজগারের আসায় গত বছর ১টি ছাগল কিনে মনোয়ারা। ঐ ছাগলটি ১টি বাচ্চাও দিয়েছে। মা ছাগলটি বাড়ির পাশেই ফসলি ক্ষেতে প্রতিদিনের ন্যায় বেঁধে রাখে। গত ২২ এপ্রিল শুক্রবার হঠাৎ একটি পাগলা কুকুর এসে ছাগলটিকে কামড় দেয়। এতে মনোয়ারা ছাগলটি নিয়ে কি করবে উদ্বিগ্ন হয়ে যান। বিভিন্ন মানুষের ও স্থানীয় ডাক্তারের পরামর্শে গ্রামেই চিকিৎসা করান। এভাবে চলতে থাকে কিছুদিন। চিকিৎসার অবনতি দেখা দিলে গত ৯ মে সোমবার নিয়ে আসা হয় চাঁদপুর পশু হাসপাতালে। ডাক্তার ছাগলটি দেখে বলেন, এটা বাঁচানো যাবেনা। যেহেতু প্রথম অবস্থায় চিকিৎসা ভুল হয়েছে। তারপরও মনোয়ারার আকুতিতে ডাক্তার তাকে কিছু পরামর্শ দিয়ে দেন। হাসপাতাল থেকে বাড়ি নেয়ার পথেই ছাগলটির মৃত্যু হয়। মনোয়ারার কান্না দেখে চাঁদপুর সদর উপজেলা কমপ্লেক্সের সামনে ভিড় জমাতে থাকে পথচারীরা। এ সময় চাঁদপুর কণ্ঠের এ প্রতিনিধি মনোয়ারাকে সান্ত্বনা দেয় এবং এ বিষয়ে কথা বলেন।

এ ব্যাপারে কথা হয় চাঁদপুর সদর উপজেলা ভেটিরিনারি সার্জন ডাঃ ফারজানা জাহানের সাথে। তিনি বলেন, কুকুরের কামড়ে মারা যাওয়া ছাগলের মালিকের কান্না দেখে খারাপ লাগছে। কিন্তু কিছু করার নেই। সময় শেষ করে আমাদের কাছে নিয়ে আশা হয়েছে। তবে শুরুতে নিয়ে আসা হলে ছাগলটির চিকিৎসা করে বাঁচানো যেতো। তিনি আরো জানান, কুকুরের কামড়ে জলাতঙ্ক হয় তথ্যটি প্রায় সবারই জানা। বিড়াল, শেয়াল, বেজি বানরের কামড় কিংবা অাঁচড় থেকে রোগ ছড়াতে পারে। এসব পশু কামড়ালেই যে জলাতঙ্ক হয় তা নয়। তবে টিকা অবশ্যই নিতে হবে। জলাতঙ্ক ছড়াতে পারে এ রকম পশু কামড়ালে জিরো আওয়ার মানে যত দ্রুত সম্ভব টিকা দিতে হবে। যত দ্রুত টিকা দেয়া হবে ততই ঝুঁকিমুক্ত থাকা যাবে। অনেকে মনে করেন, ককুর কামড় দিলে দু-একদিনের মধ্যেই টিকা দিলে হয়। এটা মোটেই ঠিক নয়। প্রাথমিকভাবে কুকুর কামড়নোর জায়গায় প্রথমেই কাপড় কাঁচার সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। ক্ষারযুক্ত সাবান দিয়ে প্রবহমান পানিতে ফেনা ফেনা করে কমপক্ষে ১৫ মিনিট ধুয়ে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে।

আজকের পাঠকসংখ্যা
১২৬৭৪১
পুরোন সংখ্যা