চাঁদপুর, বুধবার ২৭ জানুয়ারি ২০১৬। ১৪ মাঘ ১৪২২। ১৬ রবিউস সানি ১৪৩৭
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগ নেতা নিবিড় আহমেদের পিতা করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২২-সূরা হাজ্জ 


৭৮ আয়াত, ১০ রুকু, মাদানী


পরম করুণাাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।


 


১৮। তুমি কি দেখ না যে, আল্লাহ্কে সিজ্দা করে যাহা কিছু আছে আকাশম-লীতে ও পৃথিবীতে, সূর্য, চন্দ্র নক্ষত্রম-লী, পর্বতরাজি, বৃক্ষলতা জীবজন্তু এবং সিজদা করে মানুষের মধ্যে অনেকে? আবার অনেকের প্রতি অবধারিত হইয়াছে শাস্তি। আল্লাহ্ যাহাকে হেয় করেন তাহার সম্মানদাতা কেহই নাই; আল্লাহ্ যাহা ইচ্ছা তাহা করেন। 


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


পরিশ্রমী লোকের ঘুম শান্তিপূর্ণ হয়।                     


                           -জর্জ হাবার্ট।       


যে লোক কম কথা বলে চুপ করে থাকে সে অনেক বিপদ আপদ থেকে বেঁচে যায়।             -হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)


 

ফটো গ্যালারি
সংক্ষেপে কৃষি সংবাদ
২৭ জানুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


সবজিতে বিষ



 



আমাদের দেশে শাক সবজি চাষে পোকামাকড় ও রোগবালাই বড় বাধা, বিভিন্ন রোগও পোকামাকড়ের হাত থেকে সবজি ফসলকে রক্ষার জন্য সবজি চাষীরা বিষাক্ত বালাইনাশক প্রয়োগ করে থাকেন। কিন্ত এমন কোনো বালাইনাশক নেই, যা মানব দেহের জন্য কম বিষাক্ত নয়। এ দেশে মাত্রাহীন পরিমাণে বালাইনাশক ব্যবহৃত হচ্ছে শাক-সবজিতে। যে সকল সবজিতে বিষ দেওয়া হয় তার মধ্যে বেশি হচ্ছে বেগুন, হাইব্রিড টমেটো, গ্রীষ্মকালীন টমেটো, শিম, বরবটি, উচ্ছে, করলা, ঢেঁড়স, ক্যাপসিকাম মরিচ ইত্যাদি।



চাঁদপুর সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের কামরাঙ্গা বস্নকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা দুলাল চন্দ্র দাস সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথাগুলো বলেন।



 



 



মাটি ছাড়াই সবজি চাষ



 



একদিকে জনসংখ্যা বৃদ্ধি অন্যদিকে আবাদি জমির পরিমাণ কমে যাচ্ছে। এই অধিক জনসংখ্যাকে খাদ্যের যোগান এবং দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে হলে বাড়াতে হবে উৎপাদনের পরিমাণ। তাই চাহিদা পূরণের জন্য ভিন্নধমী খাদ্য উৎপাদন জরুরি হয়ে পড়েছে। এ চিন্তাকে সামনে রেখেই উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদন করা যায় কিনা সে চেষ্টা করছেন শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ জাহিদুর রহমান। তাঁর গবেষণায় হাইড্রোফনিক পদ্ধতিতে মাটি ছাড়া ফসল উৎপাদন করা যাবে। যার মধ্যে প্লাস্টিকের বালতি, পানির বোতল, মাটির পাতিল ইত্যাদি ব্যবহার করেও বাড়ির ছাদ, বারান্দা এবং খোলা জায়গায় অনেক কম খরচে ফসল উৎপাদন করা যাবে। এক্ষেত্রে পাত্রের মধ্যে গাছের প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদানগুলো পরিমিত মাত্রায় সরবরাহ করতে হবে।



হাইড্রোফনিক পদ্ধতিতে মাটি ছাড়াই টমেটো, ফুলকপি, বাঁধাকপি, শসাসহ বিভিন্ন ধরনের সবজি চাষ করা সম্ভব। গাঁদা, গোলাপ, অর্কিড, চন্দ্র মলি্লকাসহ বিভিন্ন ধরনের ফুলের চাষও করা যাবে। এ বিষয়ে অধ্যাপক ড. মোঃ জাহিদুর রহমান এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমি আগামী বছরের মধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের চাষীদের হাইড্রোফনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদের প্রশিক্ষণ দেবো। আশা করি চাষীরা এটিকে খুব দ্রুত গ্রহণ করবে।



 



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৬১৫৫৯
পুরোন সংখ্যা