চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০১৫ । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২২ । ১৩ সফর ১৪৩৭
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • --
জেলার বৃহত্তম পুলিশ লাইনস নার্সারীতে নানা প্রজাতির গাছের চারায় ভরপুর
নিজস্ব সংবাদদাতা
২৬ নভেম্বর, ২০১৫ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুর শহরের প্রাণকেন্দ্রে পুলিশ লাইনস নার্সারী বৃহত্তম। প্রায় ১৫ শতাংশ জমির উপর নার্সারীর রূপ তৈরি করেছেন চাঁদপুরের সাবেক পুলিশ সুপার মোঃ আমির জাফর।



চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে নার্সারী হওয়ায় মানুষের দৃষ্টি গোচর হয়েছে। চাঁদপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসন ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং এনজিও সংস্থা এখান থেকে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা ক্রয় করে সৌন্দর্য বর্ধন করে বলে জানিয়েছেন পুলিশ লাইনস নার্সারীর পরিচালক মোঃ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী। তিনি জানান, পুলিশ সুপার স্যার ছিলেন গাছ প্রেমিক। বর্তমান নার্সারীর জায়গাটি ছিল ডোবা এবং জঙ্গলে ভরা। স্যার আমার বাবুরহাটে এ্যাপোলো নার্সারীতে যেতেন। সেখান থেকে বিভিন্ন ধরনের ফুল ও ফলের চারা কিনে আনতেন। ঐ চারাগুলো পুলিশ লাইনস এরিয়ার বিভিন্ন জায়গায় রোপণ করাতেন। সে সুবাদেই স্যার আমাকে ডেকে এনে বললেন এখানে নার্সারী করতে। নার্সারীতে কি কি গাছ আছে জানতে চাইলে দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমাদের এখানে সব ধরনের গাছের চারা আমরা উৎপাদন করি। এছাড়া কিছু কিছু ভালো জাতের ফল ও ফলদ গাছের চারা রাজশাহী, বগুড়া, যশোর, বরিশাল, চট্টগ্রাম থেকে আমদানি করি। আবার আমারা চাঁদপুর জেলার বাহিরেও কুমিল্লা, সিলেট, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর এলাকায় পাইকারী ও খুচরা বিক্রি করে থাকি। নার্সারীতে ফলের মধ্যে বেশি বিক্রি হয় আম ও নারিকেল গাছ। ফুলের মধ্যে গোলাপ ও রজনীগন্ধা, বানায়নের মধ্যে মেহগনি ও সিল কড়ই বিক্রি হয়। এছাড়া অনেকেই বাসা-বাড়ি চাদে ফুলের টবের পসরা সাজানোর জন্য বিভিন্ন লতা ফুল গাছ কিনে নেয়। নার্সারীর রক্ষণা-বেক্ষণে ৬ জন লোক কাজ করে আমার সাথে।



নার্সারীতে ফুলের চারা কিনতে আসা কাজী শরীফ হোসেন এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমরা দেখেছি দেশের বিভিন্ন সরকারি জমি খালি পড়ে থাকে। কিন্ত আমাদের চাঁদপুরের পুলিশ লাইনস এলাকা দেখলাম ভিন্ন রূপ। আসলে সত্যিই ভালো লাগছে। নার্সারীর মনোরম সুন্দর পরিবেশ। আমার মনে হয় সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের খাস জমিগুলো এভাবে কাজে লাগাতে পারলে আমাদের দেশের পরিবেশ আরো সুন্দর হতো।



 


খবরটি সর্বমোট 1 বার পড়া হয়েছে
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

২১-সূরা : আম্বিয়া


১১২ আয়াত, ৭ রুকু, মক্কী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাাহ্র নামে শুরু করছি।


 


৫০/ ইহা কল্যাণময় উপদেশ; আমি ইহা অবর্তীর্ণ করিয়াছি। তবুও কি তোমরা ইহাকে অস্বীকার কর?


৫১/ আমি তো ইহার পূর্বে ইব্রাহীমকে সৎপথের জ্ঞান দিয়াছিলাম এবং আমি তাহার সম্বন্ধে ছিলাম সম্যক পরিজ্ঞাত। 


দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


 


মৃত্যুটা জন্মানোর মতোই স্বাভাবিক। 


- বেকন।


যার রসনা ও হস্তদয় হইতে কোন মুসলমানের কোন প্রকার অনিষ্ট না হয়, সেই প্রকৃত মুসলমান এবং যে আল্লাহর নিষিদ্ধ কার্য হইতে পলায়ন করে সেই প্রকৃত মুহাজিজর। 


- (হযরত মুহাম্মদ (সঃ))


 

ফটো গ্যালারি
করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৪,৩৬,৬৮৪ ৫,৫৪,২৮,৫৯৬
সুস্থ ৩,৫২,৮৯৫ ৩,৮৫,৭৮,৭০৩
মৃত্যু ৬,২৫৪ ১৩,৩৩,৭৭৮
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৩৫৮০৩
পুরোন সংখ্যা