চাঁদপুর, বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১৭ জিলকদ ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৭৩-সূরা মুয্যাম্মিল


২০ আয়াত, ২ রুকু, মক্কী


 


১৫। আমি তোমাদের নিকট পাঠাইয়াছি এক রাসূল তোমাদের জন্য স্বাক্ষীস্বরূপ যেমন রাসূল পাঠাইয়াছিলাম ফির'আওনের নিকট,


১৬। কিন্তু ফির'আওন সেই রাসূলকে অমান্য করিয়াছিল, ফলে আমি তাহাকে কঠিন শাস্তি দিয়াছিলাম।


 


 


 


 


 


assets/data_files/web

নিরাপদ দূরত্ব হতে সাহসী হওয়া সহজ। -ঈশপ।


 


 


 


 


 


ধনের যদি সদ্ব্যবহার করা হয় তবে তা সুখের বিষয় এবং সদুপায়ে ধন বৃদ্ধির জন্য সকলেই বৈধভাবে চেষ্টা করতে পারে।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
করোনামুক্ত : কোথাও ফুল, কোথাও নেই কূল
শেখ মহিউদ্দিন রাসেল
০৯ জুলাই, ২০২০ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


করোনাযুক্ত থেকে আজ মুক্ত। তবে শংকায় এখনো দেহ ও মন। চূড়ান্ত মুক্তি সেদিন আসবে যেদিন মহান আল্লাহপাক এ মহামারী দেশ তথা পৃথিবী থেকে তুলে নিবেন। তবে আল্লাহতায়ালার করুণাতেই আজ সুস্থ দেহে ও সুন্দর মনে আছি। শত শত মানুষের দোয়া, দরদ উজাড় করা ভালোবাসা মনোবলকে করেছে সুদৃঢ়। এখানে জয় পরাজয়ের বিষয় নয়। আল্লাহ রোগ দিয়েছেন আবার তিনিই মুক্তি দিয়েছেন। হাদিসে বর্ণিত আছে, আল্লাহপাক রোগ-ব্যাধি দিয়ে মানুষের গুনাহ মাফ করেন। হয়তো সে পথেই হাঁটছি। আজ সকলেই খুশি, করেছে শোকরিয়া, বলেছে আলহামদুলিল্লাহ। আবার ক'জনা সুস্থতায় খুশি হতে পারেনি তা বলবো না। বলবো, করোনা আক্রান্তে বাসায় খাবার সরবরাহকালে বাধা পেয়েছি, পেয়েছি কিছু মানবের অসহযোগিতা। এককথায় পরিবারের পর যাদের সহযোগিতা পাবার কথা ছিলো তারাই করেছে চরম অবহেলা। তাদেরকে নিয়ে পরম আশাতীত ছিলাম আর হলাম চরম আশাহত। কিন্তু কেনো? এর উত্তর আজো খুঁজে ফিরি। তাইতো বলি, করোনা মুক্তিতে কোথাও ফুল আবার কোথাও নেই মোর কূল! এমনই কূল নেই যে, দীর্ঘ সময়ের চেনা এক পরিবেশে দূর দূর করে বহূ দূরে ঠেলে দিয়েছে! মনে হয়েছে নিজে বুঝি এক আতংক, আপদ বুঝি এলোরে আবার গেলোরে! বিষয়টি আমার কাছে করোনাকালে খাদ্য প্রদানে বাধা দেয়া ওই ব্যক্তির মতই মনে হয়েছে। আরেক জায়গায় ফুল দিয়ে সংবর্ধনা জানিয়েছে। তাও আবার জেলা প্রশাসনের মতো জেলার সর্বোচ্চ চূড়া থেকে। দূর থেকে নয়, দূরত্ব বজায় রেখে অন্তরঙ্গভাবে করতালির মাধ্যমে ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছেন প্রশাসনের পক্ষে এডিসি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মোহমুদ জামান স্যার। শিক্ষণীয় বিষয়টি এখানে। আবার কোথাও ফুলতো দূরে থাক, নূ্যনতম কুশল বিনিময় তো নয়ই বরং পেয়েছি তিরস্কার। পুরস্কারও জুটেছে আবার তিরস্কারও মিলেছে। বিষয়টা দুজনের কাছে দু ধরনের। ব্যক্তি ব্যবধানটা এখানেই।



করোনামুক্ত ব্যক্তিকে অনেকের কাছে করোনা জয়ী বলা হয়। আমি বলি, তাহলে কারো কাছে পরাজয়ের মতো আচরণ কেনো? অনেকটা নিজগৃহে পরবাসের মতো! অনেকে আবার পরিবারের করোনামুক্তিতে আমার সাক্ষাৎকার নিয়েছে পত্রিকায় ছাপবে বলে। ফলাও করে ছাপিয়েছেও। আবার জাতীয় সংবাদ সংস্থা ইউএনবি আমাকে নিয়ে করেছে লাইভ অনুষ্ঠান। অনেক সংস্থা আরো লাইভ করারও ইচ্ছা পোষণ করছে। ২ জুলাই বিএম হান্নান ভাইয়ের রূপসী চাঁদপুর লাইভেও আমাদের করোনামুক্তির বিষয়টি আলোচনায় এসেছে। গুটি ক'জন বাদে মানুষের সহমর্মিতা এভাবেই প্রকাশ পেয়ে আসছে। করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর ওইদিন সাংবাদিক নেতা চাঁদপুর কণ্ঠ প্রধান সম্পাদক কাজী শাহাদাত এবং সমকাল সাংবাদিক ও চাঁদপুর প্রতিদিন সম্পাদক ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী ভাই ফোনে অনুরোধ করেন সুস্থতার নেপথ্যের কাহিনী লেখার জন্যে। তবে শুধু তাদের পত্রিকায় লিখতে বলেননি। যে কোনো মিডিয়ার মাধ্যমে লেখার অনুরোধ করেন করোনা নিয়ে হতাশাগ্রস্ত, আশাহত মানুষের জন্য। করোনা উত্তরণের পর বিধ্বস্ত দেহ নিয়ে তাদের উৎসাহে লিখতে বসে যাই। অধিকাংশ পত্রিকায় একসাথে পাঠানোর পর সাংবাদিক নেতা সোহেল রুশদীর দৈনিক চাঁদপুর খবরে সর্বপ্রথম প্রকাশের পর একেক করে স্থানীয় সকল পত্রিকা, রাশেদ শাহরিয়ার পলাশের ইউএনবি, মহিউদ্দিন সরকারের জাগো নিউজসহ অধিকাংশ অনলাইন ও জাতীয় দৈনিক সমকালে পর্যন্ত ছাপা হয়। অনেকে আবার লেখা তাঁর পত্রিকায় পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেন। এ জন্য সকল মিডিয়ার কর্তৃপক্ষকে করোনামুক্ত নিজ অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ধন্যবাদ দিচ্ছি ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।



পত্রিকা পড়ে অনেক পাঠক, শুভাকাঙ্ক্ষী ফোন করে আরো বিস্তারিত জেনেছেন, পরামর্শ নিয়েছেন। এখানেই লেখক আবার রোগীর সার্থকতা। যেখানে মূল্যায়নের পরিবেশটা এ রকম, সেখানে কজনের অবমূল্যায়ন এর কাছে নিমিষেই মস্নান, যা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। বিভিন্ন দেশে করোনা আক্রান্ত ও মুক্ত ব্যক্তিদের যথার্থ সম্মান দেয়া হয়। তা থেকে বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই। দেশের সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা করোনা প্রতিরোধে ব্যাপক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। করোনাযুক্ত ও মুক্ত ব্যক্তিদের যথার্থ সম্মান ও মূল্যায়ন করার নির্দেশনা দিয়েছেন। সরকার কোটি কোটি টাকার প্রণোদনা ঘোষণাও করেছেন। সেখানে কারো কাছে আমরা যেনো এ মুহূর্তে সমাজের বাহিরের লোক হয়ে গেছি! তবে এতে আমি এবং আমার পরিবার সংক্ষুব্ধ না। আমরা বিচক্ষণ, আমরা বলে যাবো মহান আল্লাহ তায়ালা ভদ্রবেশী এদের হেদায়েত দান করুক। করোনা থেকে মুক্ত রাখুক। ওদের মতো মানুষকে করোনাযুক্ত ও মুক্তের আমাদের কাতারে রাখতে চাই না। আমরা মানুষ, অমানুষ নই। মনুষ্যত্ব আমাদের আছে এবং থাকবে। করোনা আক্রান্তকে খাটো ও হেয় করা সত্যিই দুঃখজনক। আল্লাহ সকলের সহায় হোক।



 



 


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ২,৫৫,১১৩ ১,৯৫,৬২,২৩৮
সুস্থ ১,৪৬,৬০৪ ১,২৫,৫৮,৪১২
মৃত্যু ৩৩৬৫ ৭,২৪,৩৯৪
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫০৭৭০
পুরোন সংখ্যা