চাঁদপুর, মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • মতলব উত্তরের আমিরাবাদ এলাকায় মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের মুল বেড়িবাঁধে মেঘনার আকস্মিক ভাঙ্গন শুরু
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৫৭-সূরা হাদীদ


২৯ আয়াত, ৪ রুকু, মাদানী


পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহর নামে শুরু করছি।


২৬। আমি নূহ এবং ইব্রাহিমকে রাসূলরূপে প্রেরণ করিয়াছিলাম এবং আমি তাহাদের বংশধরগণের জন্যে স্থির করিয়াছিলাম নুবূওয়াত ও কিতাব, কিন্তু উহাদের অল্পই সৎপথ অবলম্বন করিয়াছিল এবং অধিকাংশই ছিল সত্যত্যাগী।


 


 


অপ্রয়োজনে প্রকৃতি কিছুই সৃষ্টি করে না। -শংকর।


 


 


কবর এবং গোসলখানা ব্যতীত সমগ্র দুনিয়াই নামাজের স্থান।


 


 


 


 


ফটো গ্যালারি
বুলবুলের তাণ্ডবে কয়েক হাজার মুরগি মারা গেছে
বিশেষ প্রতিনিধি
১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে কয়েক হাজার মুরগি মারা গেছে বাগাদী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড করেগো দোকান এলাকায় গাছ ভেঙ্গে পড়ে একটি ফার্মের কয়েক হাজার মুরগি মারা গেছে। এতে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা ক্ষতিসাধিত হয়েছে বলে ফার্মের মালিক নাঈম জানান। ঝড়ো হাওয়ায় চরাঞ্চলে ও সদর উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে বহু বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘরগুলোর টিন ও বেড়া বাতাসে উড়ে গিয়ে অনেক মানুষ আহত হয়েছে।



সোমবার দুপুরে সদর উপজেলার ৮নং বাগাদী, ১২নং চান্দ্রা এবং ১৩নং হানারচর ইউনিয়নে গিয়ে দেখা যায়, ঘূর্ণিঝড়ের তা-বে গাছ পড়ে ঘর ভেঙ্গে চুরমার হয়ে গেছে এবং ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়েছে। সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের মুরগি খামারি ব্যবসায়ী নাঈম জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বড় বড় কয়েকটি গাছ পড়ে তার দোতলা মুরগীর ফার্ম ভেঙ্গে তছনছ হয়ে যায়। টিনের চালের চাপায় প্রায় ৭ হাজার মুরগি ঘটনাস্থলেই মারা যায়। এতে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সরকারের সহযোগিতা না পেলে আর কোনোভাবেই তিনি ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন না বলে জানান। চান্দ্রা ইউনিয়নের দক্ষিণ বালিয়া গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত সেরাজল খান জানান, বিকেলে গাছ ভেঙ্গে দুটি বসত ঘরের উপরে পড়ে। ঘরগুলো দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়েছে। এই ঘটনায় ঘরের ভেতরে থাকা ৫ বছরের শিশু নাদিয়া আক্তার, মোহাম্মদ হোসেন খান, আনোয়ার হোসেন খান, আলামিন খানসহ ৬ জন শিশু গুরুতর আহত হয়েছে।



 



 



 


করোনা পরিস্থিতি
বাংলাদেশ বিশ্ব
আক্রান্ত ৩,৩৯,৩৩২ ২,৯২,০১,৬৮৫
সুস্থ ২,৪৩,১৫৫ ২,১০,৩৫,৯২৬
মৃত্যু ৪,৭৫৯ ৯,২৮,৬৮৬
দেশ ২১৩
সূত্র: আইইডিসিআর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪২৯৭৭৫
পুরোন সংখ্যা