চাঁদপুর। বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। ২ ফাল্গুন ১৪২৪। ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
kzai
jibon dip

সর্বশেষ খবর :

  • -
হেরার আলো
বাণী চিরন্তন
আল-হাদিস

৩৫-সূরা ফাতির

৫৫ আয়াত, ৫ রুকু, মক্কী

পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু  আল্লাহর নামে শুরু করছি।

১৩। তিনি রাত্রিকে দিবসে প্রবিষ্ট করেন এবং দিবসকে রাত্রিতে প্রবিষ্ট করেন। তিনি সূর্য ও চন্দ্রকে কাজে নিয়োজিত করেছেন। প্রত্যেকটি আবর্তন করে এক নির্দিষ্ট মেয়াদ পর্যন্ত। ইনি আল্লাহ; তোমাদের পালনকর্তা, সা¤্রাজ্য তাঁরই। তাঁর পরিবর্তে তোমরা যাদেরকে ডাক, তারা তুচ্ছ খেজুর আঁটিরও অধিকারী নয়।

১৪। তোমরা তাদেরকে ডাকলে তারা তোমাদের সে ডাক শুনে না। শুনলেও তোমাদের ডাকে সাড়া দেয় না। কেয়ামতের দিন তারা তোমাদের শেরক অস্বীকার করবে। বস্তুতঃ আল্লাহর ন্যায় তোমাকে কেউ অবহিত করতে পারবে না।

দয়া করে এই অংশটুকু হেফাজত করুন


মহৎ কারণে যার মৃত্যু ঘটে সে অপরাজেয়।

-বায়রন।


ঈর্ষা ও পরশ্রীকাতরতা থেকে দূরে থাকবে, কারণ অগ্নি যেমন কাঠ পুড়িয়ে খেয়ে ফেলে, সেইরূপ ঈর্ষাও সৎকার্য খেয়ে নিঃশেষ করে ফেলে।


ফটো গ্যালারি
ড. জাবেদের বিনয়
(দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠে সম্পাদকীয় হিসেবে ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে প্রকাশিত)
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০:০০
প্রিন্টঅ-অ+


ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত আইজি (এসবি) হিসেবে সুনামের সাথে কর্মরত। চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এক গ্রামে তাঁর জন্ম। এই গ্রামের বাড়ি থেকে প্রতিদিন পাঁচ মাইল হেঁটে তিনি বাবুরহাট হাই স্কুলে আসতেন। এখান থেকেই কৃতিত্বের সাথে পাস করেন এসএসসি। উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীতে গিয়ে ভর্তি হন দূরবর্তী চাঁদপুর কলেজে। প্রতিদিন এতো দূরের কলেজে পায়ে হেঁটে যাতায়াত কষ্টকর বিধায় তাঁকে কষ্ট করেই জোগাড় করতে হয়েছে একটি ভাঙ্গা সাইকেল। কলেজের ক্লাসে নিয়মিত যথাসময়ে উপস্থিতির জন্যে এই সাইকেলই ছিলো তাঁর অবলম্বন। এ কলেজ থেকে এইচএসসি পাসের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজবিজ্ঞান অনুবাদ ভর্তি হলেন। লজিং থেকে, টিউশনি করে নেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রি। তারপর বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে পুলিশের চাকুরিতে যোগদান করেন। চাকুরির প্রতিটি ক্ষেত্রে মেধা, দক্ষতা ও যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে আজ তিনি পুলিশের সর্বোচ্চ পদের চেয়ে এক ধাপ নিচে অ্যাডিশনাল ইন্সপেক্টর জেনারেল পদে সুনামের সাথে কর্মরত।



গত ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ চাঁদপুর জেলা পুলিশের বার্ষিক সমাবেশ ও ক্রীড়ায় প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি উপস্থিত ছিলেন। পরদিন বেলা ১২টায় পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে তিনি চাঁদপুরের সাংবাদিকদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন। এখানে সাংবাদিকগণ চাঁদপুরের কৃতী সন্তান হিসেবে ড. জাবেদ পাটোয়ারী যাতে ভবিষ্যতে পুলিশের সর্বোচ্চ ইন্সপেক্টর জেনারেল পদে অধিষ্ঠিত হতে পারেন সেজন্যে দৃঢ় প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন এবং তাঁর প্রতি নিখাদ ভালোবাসার সবটুকুন উজাড় করেন। আবেগাপ্লুত হয়ে ড. জাবেদ তাঁর অসম্ভব বিনয় প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, আমি গ্রামের ছেলে। গ্রাম থেকে কষ্ট করে যতটুকু উপরে উঠে এসেছি, তাতে আমি আল্লাহর প্রতি ভীষণ কৃতজ্ঞ। আমাকে আল্লাহ যতটুকু দান করেছেন, তাঁর কৃপায় আমি যতটুকু সম্মান অর্জন করেছি, তাতে আমি অশেষ শোকরিয়া আদায় করছি। আমি যে অবস্থানে আছি, তাতেই ভীষণ সন্তুষ্ট। নিশ্চয়ই আল্লাহ আমাকে এখানে থাকাটাকেই মঙ্গলজনক ভেবেছেন। আমি আত্মতুষ্টি খুঁজতে সব সময় নিচের দিকে তাকাই। আমার যারা বন্ধু, সহপাঠী, প্রতিবেশী তাদের অনেকেই তো নানা কারণে আজ আমার জায়গায় আসতে পারেনি। আর আমি সরকারি চাকুরির সুবাদে সারা পৃথিবী ঘুরে দেখতে পেরেছি, পৃথিবীর সবচেয়ে বিখ্যাত ইউনিভার্সিটিসহ অনেক নামকরা ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সুযোগ পেয়েছি। মাথা উঁচু করে বিদেশে বার বার আমার দেশের পক্ষে সম্মানজনক প্রতিনিধিত্ব করেছি, চাঁদপুরের সন্তান হিসেবে আত্মশ্লাঘা বোধ করেছি। ক'জনের ভাগ্যে এমনটি হয়? সবচে' বড় কথা, আল্লাহ এ পর্যন্ত আমাকে অনেক সুস্থতার সাথে বাঁচিয়ে রেখেছেন, যেমনটি আমার সমবয়সী, কমবয়সী অনেককেই রাখেন নি। আল্লাহর এ বড় নেয়ামতটির জন্যেও আমি তাঁর শোকর গোজার করি।



চাঁদপুর জেলার ইতিহাসে ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীই হচ্ছেন একমাত্র ব্যক্তি, যিনি দীর্ঘদিন পুলিশের অ্যাডিশনাল আইজি পদে কর্মরত থাকার রেকর্ড গড়েছেন। আল্লাহর হুকুমে তিনি যদি সর্বোচ্চ আইজি পদে অধিষ্ঠিত হবার সুযোগটি লাভ করেন, তবে তা' হবে চাঁদপুরবাসীর জন্যে অনেক গর্বের ও গৌরবের। তিনি এই পদে অধিষ্ঠিত হতে পারলে তাঁর চেয়ে সম্ভবত চাঁদপুরবাসীই বেশি আনন্দিত হবেন। তিনি পুলিশে চাকুরি করে সততা, নিষ্ঠা, মেধা ও দক্ষতার জন্যে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ কর্তা ব্যক্তি পর্যন্ত সকল মহলে যেভাবে সমাদৃত ও সম্মানিত, তাতেই তাঁর মতো চাঁদপুরবাসী হিসেবে আমরাও সম্মানিত ও আত্মতুষ্টি অনুভব করছি। তিনি যদি আইজিপি নাও হতে পারেন, একজন ভালো মানুষ হিসেবে বিনয়ের উজ্জ্বল প্রতিভাসে তাঁর চাকুরি জীবনের বাকিটা সময় প্রিয় স্বদেশ ও দেশবাসীর কল্যাণে যাতে নিজেকে উজাড় করে দিয়ে তাঁর অর্জিত সুনাম ও সম্মান বজায় রাখতে পারেন-আমরা নিরন্তর সে শুভ কামনাই করছি।



 


আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৭০৫৪১
পুরোন সংখ্যা